ব্যবস্থাপনা বিভাগে স্বাগতম


২০১৫ সালের ১২ জানুয়ারি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের তৎকালীন ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ শামসুদ্দীন ইলিয়াস স্যারের আদেশক্রমে [স্মারক নং-০৭(খু-১৯৫) জাতীঃ বিঃ/কঃ পঃ/১৬৭৬৮(৭)] খুলনা জেলাস্থ সরকারি সুন্দরবন আদর্শ কলেজে স্নাতক (সম্মান) শিক্ষা কার্যক্রমে ব্যবস্থাপনা (ম্যানেজমেন্ট) বিষয়ে অধিভুক্তির সম্ভাব্যতা যাচায়ের লক্ষে সরকারি ব্রজলাল (বি.এল) কলেজের  বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর শেখ শফিউল আজম স্যার কে প্রধান করে একটি পরিদর্শন টিম গঠন করা হয়৷ ১৮ জানুয়ারি ২০১৫ রবিবার টিম কলেজ পরিদর্শন করে এবং কলেজের ভৌগলিক অবস্থান ,যাতায়াত ব্যবস্থা, ভৌত অবকাঠামো,পর্যাপ্ত রেফারেন্স এবং টেক্সটবই,অভিজ্ঞ শিক্ষক মন্ডলী, পর্যাপ্ত সংখ্যক শ্রেণি কক্ষ,কম্পিউটার এবং ইন্টারনেট ও অন্যান্য সুবিধা বিদ্যমান দেখে সরকারি সুন্দরবন আদর্শ কলেজে ব্যবস্থাপনা বিভাগে সম্মান শ্রেণিতে পাঠদানের বিষয়টি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে অন্তরভুক্তি উপযোগী বলে সুপারিশ করেন৷ ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ব্যবস্থাপনা বিভাগের যাবতীয় কার্যক্রম রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগে পরিচালিত হবে এই মর্মে অফিস আদেশ যারি করা হয়। ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬৮ তম অধিভুক্তি কমিটির এবং একাডেমিক কাউন্সিল ও সিন্ডিকেট সভার অনুমোদনক্রমে অত্র কলেজে পরীক্ষামূলকভাবে ব্যবস্থাপনা বিভাগকে অধিভুক্তি প্রদান করা হয় ৷ এ সময় অত্র কলেজে বাংলা ও সমাজকর্ম বিভাগকে অনার্স বিভাগ হিসেবে অনুমোদন দেওয়া হয় ৷ প্রথম বছরে তিনটি বিভাগকেই ৫০ জন করে রিলিজ স্লিপের মাধ্যমে শিক্ষাথর্থী ভর্তির অনুমোদন দেওয়া হয়৷ ব্যবস্থাপনা বিভাগ চালুকরণের সাথে সম্পৃক্ত শিক্ষক ও কর্মকর্তাবৃন্দ ১৷ সহযোগী অধ্যাপক, জনাব আশফাক উদ্দীন আহমেদ,বিভাগীয় প্রধান ২।সহকারি অধ্যাপক, জনাব মোঃ শাহাদাৎ হোসেন শেখ, ৩।প্রভাষক, জনাব আ ফ ম সাইফুল্লাহ খান, ৪।প্রভাষক জনাব মোঃ নায়েব আলী এবং তিন জন খন্ডকালীন প্রভাষক নিয়ে শুরু হয় ব্যবস্থাপনা বিভাগের পথ চলা৷ (২০১৪ -১৫) শিক্ষাবর্ষে ৫০ জন শিক্ষার্থী ভর্তি নেওয়া হলেও বর্তমানে (২০১৮-১৯)শিক্ষাবর্ষে আসন সংখ্যা ১৩০ জন৷